আসুন গাছ লাগায়,পরিচর্যা করি এবং পরিবেশ বাঁচায়''

 



ছবি:সংগৃহীত

আমাদের দেশের অধিক জনসংখ্যার কারণে ফসলি জমি উজার করে বসতবাড়ি তৈরি হচ্ছে। প্রতিদিন কাটা হচ্ছে গাছপালা। কেউ কোন নিয়ম-নীতি মানছে না।তাই বর্তমানে পরিবেশ আজ হুমকির মুখে।ব্যাপকহারে গাছ-পালা  ও ফসলি জমি বিলীন হতে থাকলে প্রাকৃতিক দুর্যোগে দেশ ক্ষতিগ্রস্থ হবে।


খাদ্য সমস্যা একসময় প্রকট আকার ধারণ করবে। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় গাছ লাগানো বিকল্প আর নেই । আগেকার দিনে চারদিকে যে গাছ-পালা দেখা যেত,এখন তা তিন ভাগের এক ভাগও দেখা যায় না। এমন চলতে থাকলে তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেয়ে পরিবেশের উপর বিরুপ প্রতিক্রিয়া পড়বে। এমনিতেই দেশ পানিতে ডুবে যাওয়ার সতর্কবাণী দেয়া হচ্ছে। 


ছবি: সংগৃহীত



সবুজ শ্যামল এ দেশটা আগের মতো আর নেই। যেসব গুণের কারণে আমাদের এ দেশকে সবুজ-শ্যামল বলা হতো তা হল চারদিকে ঘন গাছ-পালা আর সবুজের সমোরহ। এখন সেই সবুজ-শ্যামল রুপ খুব কমই চোখে পড়ে। গাছ-পালা ও ফসলি জমি ধ্বংসের কারণে পাখ-পাখালিও আগের মতো দেখা যায় না। গাছ-পালা কাটার ফলে পাখিদের আশ্রয়স্থল কমে যাচ্ছে।তাই  এভাবে গাছ-পাল কাটতে থাকলে পাখিদের বংশবৃদ্ধিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

অস্বাভাবিকভাবে কেউ গাছ-পালা কাটলে তেমন কোন প্রতিবাদও হয় না এখন। ফলে নির্বিচার বৃক্ষ নিধনের মিছিলে নেমে পড়ছে অসাধু চক্র। তাই পরিবেশগত সমস্যা বেড়েই চলেছে। তাই আমাদের হোক এই স্লোগান ''গাছ লাগান,পরিবেশ বাঁচান'' । ফসলি জমি রক্ষা করতে সবাইকে সচেতন হতে হবে।একটি ছোট দেশে এভাবে জনসংখ্যা বৃদ্ধি পেলে ফসলি জমি ধ্বংস করে সবাই  বাড়ি তৈরি করবে এটাই স্বাভাবিক ।

ফসলি জমি ও গাছ-পালা বিনষ্ট করে দালানকোঠা তৈরি করার ফলে একসময় দেশে দুর্ভিক্ষ দেখা দেবে। তাছাড়া এভাবে গাছ-পালা কমতে থাকলে মানুষের অক্সিজেনের অভাবে ভুুগবে।বিশুদ্ধ বাতাসের অভাবে আমাদের শরীরে বিভিন্ন রোগ হবে। তাই জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। এর ফলে গাছ-পালা কাটা বন্ধ হবে,দেশ,আবার সত্যিকার রুপে সবুজ-শ্যামল হয়ে উঠবে।


ছবি: সংগৃহীত


আগে গাছে যে পরিমাণ ফল পাওয়া যেত,এখন আর সে পরিমাণ ফল পাওয়া যায় না । আগেকার দিনে গ্রামাঞ্জলে আম,জাম,লিচু,কাঠাল,পায়েরা হরেক প্রজাতির ফল উৎপাদিত হতো। এখন আর সে পরিমাণ ফল উৎপাদিত হয় না। কারণ  এসব গাছ আর আগের মতো দেখতে পাওয়া যায় না। ফলবান বৃক্ষ নিধন করে মানববসতি গড়ে তোলা হচ্ছে। 

আজকের দিনে শিশু-কিশোরদের কাছে আগেকার দিনের ফল-ফলাদির কথা বললে তারা বিশ্বাসই করতে চায় না । সেই দিন আবার ফিরিয়ে আনতে হবে।  এজন্য দরকার অধিকহারে বৃক্ষরোপন । গাছে-গাছে,ফুলে-ফুলে ভরে উঠুক আমাদের বাড়ির আঙ্গিনা । স্কুল প্রতিষ্ঠানে,বাড়ির আঙ্গিনায়,রাস্তার পাশে গাছ লাগানোর কর্মসূচি অব্যাহত রাখতে হবে। বৃক্ষ নিধনের মিছিল এভাবে চলমান থাকলে মানবজীবন হুমকির মুখে পড়বে,পরিবেশের বিপর্যয় ঘটবে,দেশ ক্ষতিগ্রস্থ হবে,পৃথিবী ধ্বংসের মুখোমুখি হবে। তাই গাছ লাগিয়ে পরিবেশের ভারসাম্য ফিরিয়ে আনতে সবার দৃষ্টি ্‌আকর্ষণ করছি।





ছবি: সংগৃহীত




 

Ads go here

Comments